আপনি শীতকালে উষ্ণ গরম পানিতে গোসল করবেন কেন?

গরম পানিতে গোসল

সুস্থ্য থাকার প্রচেষ্টায় হোক বা ঠান্ডার কারণে, অনেকেই শীতকালে প্রতিদিন গরম পানি দিয়ে গোসল করেন। এই সময়ে আমরা ঠান্ডা পানিতে শিশু এবং বয়স্কদের গোসল করার কথা ভাবতে পারি না। কারণ আমাদের মনে এই ধারণা আছে যে, শীতকালে শিশু এবং বয়স্কদের জন্য ঠান্ডা পানি বিপজ্জনক হতে পারে। তবে কেবল শিশু এবং বয়স্করাই নয়, তরুণরাও গরম পানি দিয়ে গোসল করে উপকৃত হতে পারে। যেমন:

* ক্যালোরি হ্রাস: আপনি হয়তো কল্পনা করেননি যে গরম পানিতে গোসল করলে ক্যালোরি হ্রাস হয়। গবেষণায় দেখা গেছে যে, এক ঘণ্টা আপনার শরীর গরম পানিতে ভিজিয়ে রাখেন তাহলে ত্রিশ মিনিট হাঁটলে আপনার যতটা ক্যালোরি হ্রাস হয় ঠিক ততটুকুই হ্রাস হবে। কিন্তু ভাববেন না যে গরম পানি দিয়ে গোসল করা ব্যায়ামের বিকল্প। শীতে অলসতা শরীরে অতিরিক্ত ক্যালোরি হ্রাসের হার কমায়। তাহলে খারাপ কি? যদি আপনি এই শীতের সময়ে গরম পানিতে গোসল করে কিছু ক্যালোরি হ্রাস করতে পারেন!

* রক্তে শর্করার মাত্রা কমায়: লাফবোরাফ বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষণা বলছে যে, গরম পানিতে গোসল করলে রক্তে শর্করার মাত্রা কমতে পারে। অধ্যয়নে অংশগ্রহণকারীদের খাওয়ার পরে গরম পানিতে গোসল করতে বলা হয়েছিল। দেখা গেছে যে, এক ঘণ্টা শরীর গরম পানিতে ডুবিয়ে রাখলে সাইক্লিংয়ের তুলনায় রক্তে শর্করার মাত্রা ১০ শতাংশ কমে যায়। রক্তে শর্করার মাত্রা কমার একটি সম্ভাব্য কারণ হিট শক প্রোটিন নিঃসরণ হতে পারে। কিন্তু তাই বলে শর্করা কমাতে ব্যায়াম না করে ঘন্টার পর ঘন্টা আপনার শরীরকে গরম বাথটবে ডুবিয়ে রাখবেন না।

* ত্বক পরিষ্কার: আমরা যখন গরম পানিতে গোসল করি তখন আমাদের ত্বকের ছিদ্রগুলো খুলে যায়। ফলে ত্বকে জমে থাকা পদার্থ এবং টক্সিন দূর হয়। গরম পানিতে গোসল করলে শুধু ত্বক পরিষ্কার হয় না বরং ত্বককে ভালো অনুভূতিও দেয়। কিন্তু শুষ্কতা এবং ত্বকের বিরূপ প্রতিক্রিয়া এড়াতে দীর্ঘ সময় গরম পানিতে গোসল করবেন না। জেনে রাখুন কুসুম গরম পানিতে শরীর ভিজিয়ে রাখার ক্ষেত্রেও সাবধান থাকুন।

* সাইনাস দূর হয়: যদি সাইনাস শুকনো বা বন্ধ থাকে তাহলে আপনি গরম পানি দিয়ে গোসল করে উপকার পেতে পারেন। গরম জলের বাষ্প শ্লেষ্মাকে পাতলা করে এবং সাইনাসগুলি খুলে দেয়। শীতকালে সাইনাসের সমস্যা বাড়তে পারে তাই এই সময়ে গরম পানিতে নিয়মিত গোসল করা জরুরি

* হার্ট অ্যাটাকের ঝুঁকি কমায়: ২০২০ সালের মার্চ মাসে হার্ট জার্নালে প্রকাশিত একটি গবেষণায় বলা হয়েছে যে গরম জলে স্নান করা হার্টের স্বাস্থ্যের জন্য ভাল। গবেষকরা জাপানের ৩০,০০০ এরও বেশি মধ্যবয়সী মানুষের জীবনধারা এবং স্বাস্থ্য বিশ্লেষণ করেছেন। গবেষণায় দেখা গেছে যে যারা নিয়মিত গরম পানিতে গোসল করে তাদের কার্ডিওভাস্কুলার ডিজিজ বা হৃদরোগের ঝুঁকি ২৮ শতাংশ কম থাকে

* স্ট্রোকের ঝুঁকি কমায়: এই বছর হার্ট নামক জার্নালে প্রকাশিত গবেষণায় আরও বলা হয়েছে যে, গরম পানিতে গোসল করলে স্ট্রোকের ঝুঁকি কমে। গবেষকরা ৩০,০০০ মানুষের জীবনধারা এবং স্বাস্থ্যগত তথ্য বিশ্লেষণ করে দেখেছেন যে, নিয়মিত গরম পানিতে গোসল করলে স্ট্রোকের ঝুঁকি ২৬ শতাংশ কমে যায়। গবেষকরা বিশ্বাস করেন যে গরম পানির তাপ রক্তচাপ কমিয়ে দিতে পারে এবং হৃদস্পন্দন বাড়িয়ে শরীরের বিভিন্ন অংশে রক্ত প্রবাহ বজায় রাখতে পারে।

* রক্তচাপ কমায়: আপনার যদি উচ্চ রক্তচাপের প্রবণতা থাকে, তাহলে আপনি শীতকালে গরম পানি দিয়ে গোসল করার কথা ভাবতে পারেন। কারণ এর তাপমাত্রা রক্তচাপ কমিয়ে দিতে পারে। উচ্চ রক্তচাপের ফলে ধমনী ক্ষতিগ্রস্ত হয় এবং অনমনীয় হয়। ফলে হার্টে রক্ত ও অক্সিজেনের প্রবাহ কমে যায় এবং হৃদরোগ হয়। উচ্চ রক্তচাপ শুধু হার্ট অ্যাটাক নয়, স্ট্রোকও হতে পারে।

* রক্ত সঞ্চালন বাড়ায়: গরম পানিতে গোসল করলে হৃদযন্ত্র আগের চেয়ে দ্রুত এবং অধিক দক্ষতার সাথে কাজ করতে পারে। এতে শরীরে রক্ত সঞ্চালন বৃদ্ধি পায়। বর্তমান মহামারী কোভিড -১৯ এর অন্যতম জটিলতা হল রক্ত জমাট বাঁধা। অনেক করোনাভাইরাস রোগী ইতিমধ্যে রক্ত জমাট বাঁধার কারণে মারা গেছে। গরম পানিতে গোসল করে এবং শরীরে রক্ত সঞ্চালন বাড়িয়ে এই ঝুঁকি কমানো যায়।

রেফারেন্সঃ

ntvbd.com

risingbd.com

samakal.com

এই ওয়েবসাইটে আপনি পাবেন সম্পূর্ণ বাংলা ভাষায় বিভিন্ন ধরনের জানা ও অজানা সকল তথ্য। যে তথ্যগুলো আপনাকে দৈনন্দিন জীবনযাত্রায় অনেক ধরনের সাহায্য করতে পারে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Previous Story

জেনে নিন মূত্রনালীর সংক্রমণ এর প্রাথমিক লক্ষণ, কারণ এবং ঘরোয়া প্রতিকার

Next Story

কিডনি রোগ এর প্রধান লক্ষণগুলো জেনে নিন