প্রতিদিন ব্যায়াম করার সুবিধা কী কী তা এখনই জেনে নিন

ব্যায়াম করার সুবিধা

প্রতিদিন কিছু সময় শারীরিক ব্যায়াম করা স্বাস্থ্যের পক্ষে অত্যন্ত উপকারী। আমাদের শরীর এবং স্বাস্থ্য ভালো রাখতে আমাদের প্রতিদিন শারীরিক ব্যায়াম করা উচিত। তবে, খালি পেতে যদি আপনি প্রতিদিন সকালে আধা ঘন্টা ব্যায়াম করতে পারেন কারণ এটি আপনার স্বাস্থ্যের জন্য অনেক ভাল এবং উপকারী।

যুক্তরাজ্যের বাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ডিলান থম্পসনের মতে, চর্বিযুক্ত টিস্যুগুলো খাবার খাওয়ার পরে হজমে ব্যস্ত থাকে। অতএব, আপনি যদি এইসময়ে শারীরিক ব্যায়াম করেন এতে খুব বেশি সুবিধা পাবেন না। তিনি বলেছিলেন যে, খালি পেটে ব্যায়াম করলে অ্যাডিপোজ টিস্যুতে একটি উল্লেখযোগ্য প্রভাব ফেলে। ওজন হ্রাস করা এবং শরীর ফিট রাখার অনেক সুবিধা রয়েছে। আজকে আমরা এই পোষ্টে আলোচনা করব প্রতিদিন ব্যায়াম করার সুবিধা কী কী?

আসুন জেনে নেই শারীরিক ব্যায়ামের উল্লেখযোগ্য কিছু উপকারিতা

শারীরিক শক্তি বৃদ্ধি এবং শরীরের ভারসাম্য বাড়ায়

শারীরিক শক্তি বৃদ্ধি করে এবং শরীরের ভারসাম্য বজায় রাখা ব্যায়ামের প্রধান সুবিধা। শারীরিক ব্যায়াম সমস্ত স্বাস্থ্যকর এবং অস্বাস্থ্যকর মানুষের জন্য সমান ভূমিকা পালন করে। তাই নিয়ম অনুযায়ী প্রতিদিন শারীরিক ব্যায়াম করার চেষ্টা করুন।

শরীরের অতিরিক্ত ওজন নিয়ন্ত্রণে সহায়তা করে

শরীরের অতিরিক্ত ওজন হ্রাস করার সবচেয়ে কার্যকর উপায় হচ্ছে ব্যায়াম করা। অনেক লোক আছেন যারা তাদের ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখতে প্রতিদিন ডায়েট করেন, প্রতিদিন হাঁটেন, উচ্চমানের যন্ত্রপাতি দিয়ে ব্যায়াম করেন ইত্যাদি। প্রতিদিন সকালে ৩০ মিনিট এবং রাতে ৩০ মিনিট হাঁটা বা জগিং করা স্বাস্থ্যের পক্ষে খুব উপকারী। আপনি যদি আপনার শরীরের ওজন নিয়ন্ত্রণ করেন তবে আপনি স্বাস্থ্যকর এবং শক্তিশালী হবেন।

রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে সহায়তা করে

শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে প্রতিদিন শারীরিক ব্যায়াম করুন। রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ানোর বিভিন্ন উপায় রয়েছে তবে ব্যায়াম করা সবচেয়ে সেরা উপায়। প্রতিদিন নিয়ম মেনে ব্যায়াম করার ফলে রক্ত ​​এবং পেশী ফ্যাটগুলির স্তর হ্রাস পায়, উচ্চ রক্তচাপ, স্তন ক্যান্সার এবং ডায়াবেটিসের ঝুঁকি কমে যায়। শারীরিক ফিটনেস উন্নত করে তাই দেহে ইনসুলিন সংবেদনশীলতা এবং কার্ডিওভাসকুলার এর মাত্রা বাড়ায়। তাই রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে প্রতিদিন পর্যাপ্ত ব্যায়াম করুন।

ডায়াবেটিসের ঝুঁকি কমাতে ব্যায়ামের ভূমিকা

নিয়মিত ব্যায়াম করলে ডায়াবেটিস হওয়ার সম্ভাবনা হ্রাস পায়। ডায়াবেটিসে আক্রান্ত রোগীরা তাদের ডায়েট নিয়ন্ত্রণ করার পাশাপাশি নিয়মিত শারীরিক ব্যায়ামের অভ্যাস গড়ে তুলুন। কারণ ব্যায়াম ইনসুলিন সংবেদনশীলতা বাড়ায় এবং ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে সহায়তা করে। ডায়াবেটিস রোগীদের প্রতিদিন সকালে এবং বিকালে 30 মিনিটে করে ব্যায়াম করা উচিত।

শরীরে অক্সিজেনের সরবরাহ বাড়াতে সহায়তা করে

আমরা সকলেই জানি যে শরীরে অক্সিজেন সরবরাহ ভালো না হলে আমরা অসুস্থ হয়ে পড়তে পারি। আমরা যখন সঠিকভাবে শ্বাস ফেলি এবং দেহে পর্যাপ্ত অক্সিজেন সরবরাহ করতে পারি তখন আমরা সুস্থ থাকি। এবং শারীরিক ব্যায়ামের মূল গুণ হ’ল শ্বাস-প্রশ্বাস ঠিক রাখা এবং দেহে পর্যাপ্ত অক্সিজেন সরবরাহ করা। আপনার শরীরে যদি অক্সিজেন সরবরাহ কম থাকে তবে একজন বিশেষজ্ঞ ডাক্তারের সাথে পরামর্শ করুন এবং নিয়ম মেনে চলুন।

মেজাজ ভালো এবং প্রফুল্ল রাখতে সহায়তা করে

আমরা সবাই জানি যে, আমাদের মেজাজ ভালো থাকলে আমাদের স্বাস্থ্য ভালো থাকে এবং আমাদের রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে থাকে। শারীরিক ব্যায়াম আমাদের মস্তিস্কের হরমোনগুলির সেরোটোনিন এবং নোরপাইনফ্রিনের সংবেদনশীলতা বাড়ায়। তাই ব্যায়াম আমাদের শরীরের স্ট্রেস এবং উদ্বেগ নিয়ন্ত্রণ করতে সহায়তা করে। তাই প্রতিদিন সকালে ও বিকালে ব্যায়াম করার অভ্যাস করুন যাতে আপনার স্বাস্থ্য ও মন সারাদিন ভালো রাখতে পারে।

পর্যাপ্ত ঘুমের জন্য প্রতিদিন ব্যায়াম করুন

আপনি যদি রাতে পর্যাপ্ত পরিমাণে ঘুম না হয় তবে প্রতিদিন ব্যায়াম করার অভ্যাস করুন। আপনি যদি প্রতিদিন সকালে ও বিকালে সঠিকভাবে ব্যায়াম করেন তবে রাতে ঘুমের সমস্যা সমাধান হবে। ব্যায়াম শরীরের হরমোন সেরোটোনিন এবং নোরপাইনফ্রিনের প্রতি মস্তিষ্কের সংবেদনশীলতা বাড়ায়। তাই রাতে ঘুমের সমস্যা দূর করতে ব্যায়াম অনেক বেশি সহায়তা করে। অনেকে শারীরিক পরিশ্রমের অনেক কাজ করেন তাই ব্যায়ামের প্রয়োজনীয়তা অনুভব করেন না। তারা মনে করেন আপনি শারীরিক পরিশ্রমের কাজ করছেন তাই শারীরিক ব্যায়াম দরকার নেই। তবে সেই ধারণাটি সম্পূর্ণ ভুল কারণ ব্যায়াম মনকে শারীরিক পরিশ্রমের পাশাপাশি মনকে প্রফুল্ল রাখে। তাই প্রতিদিন সঠিক নিয়মে ব্যায়াম করলে স্বাস্থ্য এবং শরীরের প্রতিটি অঙ্গের জন্য বেশ ভালো

শরীরের হাড় মজবুত করতে ব্যায়ামের ভূমিকা

শরীরের হাড়গুলি গঠন এবং শক্তিশালী করা ব্যায়ামের সর্বাধিক গুণ। প্রতিদিন নিয়মিত ব্যায়াম করলে শরীরের পেশী সুস্থ রাখে এবং হাড়ের গঠনকে উন্নত করে। বিশেষত, পায়ের হাড়কে শক্তিশালী এবং স্বাস্থ্যকর রাখতে, হাড়ের ব্যাথা ও ক্ষয়রোগ প্রতিরোধ করতে ব্যায়ামের ভূমিকা অতুলনীয়।

উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে ব্যায়াম বিশেষ ভূমিকা পালন করে

হার্ট ভালো রাখতে শারীরিক ব্যায়ামের ভূমিকা অনেক বেশি। শারীরিক ব্যায়াম মস্তিষ্ক এবং হার্টে সঠিক রক্ত ​​সরবরাহ বজায় রাখতে সহায়তা করে এবং উচ্চ রক্তচাপের ঝুঁকি হ্রাস করে। সুতরাং আপনার প্রতিদিন সকালে এবং বিকালে ৩০ মিনিটের জন্য শারীরিক ব্যায়াম করা উচিত। যারা উচ্চ রক্তচাপে ভুগছেন তাদের প্রতিদিন নবম করে শারীরিক ব্যায়াম করা খুব জরুরি।

মস্তিষ্ক ভালো রাখে এবং স্মৃতিশক্তি বাড়ায়

মস্তিষ্ককে সুস্থ রাখতে এবং স্মৃতিশক্তি বাড়াতে শারীরিক ব্যায়ামের ভূমিকা কতটুকু আমরা অনেকেই জানি না। নিয়মিত ব্যায়াম মস্তিস্কের রক্ত ​​সঞ্চালন বাড়ায় তাই মস্তিষ্ক ভালো এবং সুস্থ থাকে। আমরা সকলেই জানি যে, মস্তিষ্ক সুস্থ থাকলে আমাদের স্মৃতিশক্তি ও স্বাস্থ্য ভালো থাকে। তাই প্রতিদিন সকালে এবং বিকেলে ৩০ মিনিট নিয়ম মেনে ব্যায়াম করা আমাদের স্বাস্থ্যের জন্য ভালো এবং এটি মস্তিষ্কের স্ট্রোকের ঝুঁকিকে হ্রাস করে। তাই আমাদের নিয়ম অনুসারে প্রতিদিন শারীরিক ব্যায়াম করা উচিত

রেফারেন্সঃ

steemit.com

banglanews24.com

এই ওয়েবসাইটে আপনি পাবেন সম্পূর্ণ বাংলা ভাষায় বিভিন্ন ধরনের জানা ও অজানা সকল তথ্য। যে তথ্যগুলো আপনাকে দৈনন্দিন জীবনযাত্রায় অনেক ধরনের সাহায্য করতে পারে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Previous Story

আপনি টাইপ ২ ডায়াবেটিস রোগে আক্রান্ত কিনা কিভাবে বুঝবেন?

Next Story

ভাজা মুরগির চারটি সুস্বাদু রেসিপি কিভাবে তৈরি করবেন জেনে নিন